সংবাদ শিরোনামঃ
আলিফ মীম হাসপাতালের শেয়ার হোল্ডারদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি জেলা বিএমএ ও স্বাচিপের সভাপতি ডা: জাকির হোসেন উপজেলা নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ না নিতে এমপি আনোয়ার খাঁনকে চিঠি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এডভোকেট রহমত উল্যাহ বিপ্লবের কিছু কথা লক্ষ্মীপুরের কৃতিসন্তান আনোয়ারুল হক ছলেমা খাতুন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কামাল ফার্মারের  জন্মদিনে তিনি সকলের আশির্বাদ /দোয়া প্রার্থী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদি ইউপি নির্বাচনে মীর শাহআলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে এডভোকেট নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত অনিয়মে চাকরিচ্যুত হবেন কর্মকর্তারা, ফেক্ট- উপজেলা পরিষদ নির্বাচন লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ পুরস্কার নিয়ে বির্তক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন লক্ষ্মীপুর -১ আসনের ড, আনোয়ার খান এম পির বড় ভাই আখতার খান রায়পুর উপজেলার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পুনরায় অধ্যক্ষ মামুনের চেয়ারম্যান হওয়া প্রয়োজন লক্ষ্মীপুর জেলায় ৮ম: বারের মতো শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হলে মোঃ এমদাদুল হক দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক
দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজধানীতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার

দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজধানীতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার

ভিবি নিউজ ডেস্ক:

রাজধানীর পল্টনে পুলিশের হাতে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক। গত বুধবার ২৪ অগাস্ট ২০২২ ইং রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতিত সাংবাদিক এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার মহা-পুলিশ পরিদর্শক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি পুলিশ সদর দপ্তরের আইজিপি’স কমপ্লেইন সেল গ্রহণ করেছে। সিরিয়াল নম্বর ৯৯০, তারিখ ২৫/৮/২০২২।
লিখিত অভিযোগে বলা হয়, গত বুধবার রাত ১০টার দিকে নিজ কর্মস্থল দৈনিক জনতা অফিস থেকে কাজ শেষে বাসায় যাওয়ার সময় পল্টন মোড় অতিক্রম করার পর আবদুর রাজ্জাক দেখতে পান, সাধারণ পোশাক পরা কয়েকজন লোক জনৈক ব্যক্তিকে লাঠি দিয়ে উপর্যুপরি পেটাচ্ছেন। এ দৃশ্য সাংবাদিক রাজ্জাক তার মুঠোফোনে ধারণ করেন। এর পর দেখা যায়, ইউনিফর্ম পরা পুলিশ সদস্যরাও লোকটিকে পেটাচ্ছেন। চিত্রধারণের বিষয়টি দেখতে পেয়ে সাধারণ পোশাকের একজন রাজ্জাকের পরিচয় জানতে চান। মুহাম্মদ রাজ্জাক সাংবাদিক পরিচয় দেয়ার পর নানান বাজে মন্তব্য ও গালিগালাজ শুরু করেন তারা। এরপর তারা রাজ্জাকের মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। একপর্যায়ে তাকেও লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকেন। এসময় লাথি, ঘুষি দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয়া হয়। মারধরের সময় রাজ্জাকের পকেটে থাকা মানিব্যাগ ও চোখের চশমা হারিয়ে যায়। একপর্যায়ে তাকে থানায় নিয়ে হাজতে রাখার ভয় দেখিয়ে দ্রুত সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়।
রাজ্জাক বলেন, ঘটনাস্থলে সাধারণ পোশাকে যারা ছিলেন তারা সবাই পুলিশের সদস্য। তারা অন্যায়ভাবে একজন সাধারণ মানুষকে রাস্তার উপর ফেলে মারছিলেন। এ দৃশ্য আমি মুঠোফোনে ধারণ করার পর আমাকেও উপর্যুপরি পেটাতে থাকে। আমাকে পিটিয়ে রাস্তায় ফেলে কিল ঘুষি ও লাথি মেড়ে আমার পকেটে থাকা মানিব্যাগ নিয়ে আমাকে হাজতের ভয় দেখিয়ে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়। তিনি জানান, অভিযোগের অনুলিপি আগামীকাল ডিএমপির পুলিশ কমিশনার ও মতিঝিল জোনের উপ-পুলিশ কমিশনারকে দেয়া হবে।