সংবাদ শিরোনামঃ
দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক এমপি ও মন্ত্রী হতে নয় বরং মানুষের পাশে দাঁড়াতে আ.লীগ করি, সুজিত রায় নন্দী বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই লক্ষ্মীপুরে বিনা তদবিরে পুলিশে চাকরি পেল ৪৪ নারী-পুরুষ দুস্থ মানবতার সেবায় এগিয়ে আসা “সমিতি ওমান ” কর্তৃক চট্টগ্রামে ইফতার সামগ্রী বিতরণ দলিল যার, জমি তার- নিশ্চিতে আইন পাস লক্ষ্মীপুরে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে পবিত্র কুমার  লক্ষ্মীপুর সংরক্ষিত আসনের মহিলা সাংসদ আশ্রাফুন নেসা পারুল রায়পুরে খেজুর রস চুরির প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধকে মারধরের অভিযোগ লক্ষ্মীপুরে আলোচিত রীয়া ধর্ষণের বিষয়ে আদালতে মামলা তিনশ’ বছরের ঐতিহাসিক ‘খোয়াসাগর দিঘি’র নাম পরিবর্তনের কোন সুযোগ নেই, জেলা প্রশাসক’

হিজড়ারাও মানুষ

ভিবি নিউজ ডেস্ক:

হিজড়াদের নাগরিকত্বের আওতায় আনা হয়েছে। তারা ভোটাধিকারও লাভ করেছে। কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত করোনা টিকার আওতায় আসতে পারেনি যা তাদের প্রতি উপেক্ষার শামিল। তাদের প্রতি অবহেলা মানে মানবতার প্রতি উদাসীনতার স্বাক্ষর। তারাও মানুষ। সমাজের আর দশজন মানুষের মতো হিজড়ারাও সকল সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার অধিকারী।

গত জানুয়ারি থেকে দেশে টিকা নিবন্ধনের কাজ শুরু হয়েছে। আর ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী চলছে টিকা কার্যক্রম। এরই মধ্যে কয়েক ধাপ পেরিয়ে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত সকল নাগরিকের টিকার আওতায় আনার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। কিন্তু বিভিন্ন সমস্যার কারণে হিজড়াদের টিকাদানের আওতায় আনা যায়নি। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, হিজড়াদের টিকা দেয়ার বিষয়ে অধিদফতরের এখনই কোনো পরিকল্পনা নেই। কিন্তু কেন? তাদের জন্মই কি আজন্মের পাপ? তাদের টিকার অন্তর্ভুক্ত করতে বিলম্ব কেন? তারাও মানুষ। তাদের জীবনের মূল্যকে খাটো করে দেখার সুযোগ নেই। টিকা কর্মসূচির আওতায় অনলাইনে সুরক্ষা অ্যাপে হিজড়া অপশন না থাকা খুবই দুঃখজনক। টিকা নিবন্ধনের অ্যাপে পুরুষ ও নারীর ঘর আছে। কিন্তু হিজড়াদের কোনো ঘর নেই। মানব সমাজে নারী-পুরুষের পাশাপাশিই তাদেরও জন্ম। তারা অন্য গ্রহ বা ভিন্ন প্রজাতির নয়। রাষ্ট্রের হর্তাকর্তা, সমাজের নামি-দামি মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির কারণেই তারা পিছিয়ে পড়া এক জনগোষ্ঠী। মানবতার কাতারে, ধনী-গরিব, নারী-পুরুষ, হিজড়া সবার প্রাণের সমান মূল্য। প্রভাব-প্রতিপত্তি, ধন-সম্পদে কেউ পিছিয়ে থাকতে পারে। কিন্তু জীবনের মূল্যে কেউ কারো পেছনে নয়। করোনা মহামারীর টিকা প্রাপ্তিতে ধনী-গরিব, হিজড়া সবার সমান অধিকার।

রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় দেশের হিজড়া জনগোষ্ঠীকে দ্রুতই টিকাদান কর্মসূচির আওতায় আনা উচিত। কারণ তারাও মানবসমাজেরই অংশ।