সংবাদ শিরোনামঃ
দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক এমপি ও মন্ত্রী হতে নয় বরং মানুষের পাশে দাঁড়াতে আ.লীগ করি, সুজিত রায় নন্দী বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই লক্ষ্মীপুরে বিনা তদবিরে পুলিশে চাকরি পেল ৪৪ নারী-পুরুষ দুস্থ মানবতার সেবায় এগিয়ে আসা “সমিতি ওমান ” কর্তৃক চট্টগ্রামে ইফতার সামগ্রী বিতরণ দলিল যার, জমি তার- নিশ্চিতে আইন পাস লক্ষ্মীপুরে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে পবিত্র কুমার  লক্ষ্মীপুর সংরক্ষিত আসনের মহিলা সাংসদ আশ্রাফুন নেসা পারুল রায়পুরে খেজুর রস চুরির প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধকে মারধরের অভিযোগ লক্ষ্মীপুরে আলোচিত রীয়া ধর্ষণের বিষয়ে আদালতে মামলা তিনশ’ বছরের ঐতিহাসিক ‘খোয়াসাগর দিঘি’র নাম পরিবর্তনের কোন সুযোগ নেই, জেলা প্রশাসক’
লক্ষ্মীপুর সদরে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু এ যেন মরন ফাঁদ

লক্ষ্মীপুর সদরে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু এ যেন মরন ফাঁদ

ভি বি রায় চৌধুরী – পশ্চিম লক্ষ্মীপুরে সেতুর মাঝে বড় গর্ত হওয়ায় চরম ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। যেকোনো মূর্হুতে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।
বিষয়টি সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়নের ৬নং নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকার দালাল বাজার টু সাদ্দার পোল সড়কে খলিফা বাড়ীর পাশে অবস্থিত ঝুঁকিপূর্ন এ সেতু দিয়ে প্রতিদিন স্কুুল, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী, পণ্য ও যাত্রীবাহী যানবাহনসহ হাজারও মানুষের চলাচল এই সড়ক দিয়ে।

বিকল্প রাস্তা না থাকায় এলাকাবাসী বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সেতু দিয়ে চলাচল করছেন। এ সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো নজরদারি না থাকায় এলাকাবাসী এ বিষয়ে নানা প্রশ্নও তুলছেন। পুরাতন ঢালাই ভেঙ্গে পড়া সেতুর উপর কোন রকমে কাঠ দিয়ে জোড়াতালির মাধ্যমে চলাচল অব্যাহত আছে। এতে করে প্রতিদিন এ এলাকার স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার মানুষ এবং যানবাহন বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত সরু এবং ভাঙা এ সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করছে। ফলে যেকোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। এতে হতে পারে প্রাণহানি?
এছাড়াও ব্রিজটি সরু হওয়ায় দু’দিক থেকে ছেড়ে আসা যানবাহন ও পথচারীদের পারাপারের সময় দুর্ভোগ পোহাতে হয়। স্থানীয়রা জানান, প্রায় একমাস থেকে ব্রিজটি বিধ্বস্ত অবস্থায় পড়ে আছে। জরুরি ভিত্তিতে এটি মেরামত করা না হলে যে কোনো সময় ধসে পড়তে পারে। অন্যদিকে সেতুটি ভেঙে নতুন ব্রিজ নির্মানের দাবি জানিয়েছেন যানবাহনের চালকসহ এলাকাবাসী।
১২ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, এলজিইডি বিভাগ কর্তৃক নির্মিত এ সেতু দিয়ে বাধ্য হয়ে এলাকাবাসীসহ সিএনজি অটোরিকশা, পিক-আপসহ হালকা -ভারি যানবাহন চলাচল করছে। আরো দেখা গেছে, মরণফাঁদে পরিণত হওয়া এ ব্রিজটির বিষয়ে এলাকাবাসীসহ সংশ্লিষ্ট ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, অনেক আগেই এ সেতুতে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে বলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। স্হানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সোহেল বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ এ সেতু দিয়ে অতিরিক্ত যানবাহন চলাচলের কারণে সেতুটি দুর্বল হলে সেতুর ঢালাই ভেঙ্গে পড়ে। এতে সেতু ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম। মাঝখানে ক্ষয়হয়ে ব্রিজের র‌্যালিং খসেপড়ায় ঐ স্থান দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

স্থানীয় বাসিন্দা ও লক্ষ্মীপুর জেলা জজ আদালতের সিনিয়র এডভোকেট ফিরোজ আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, পুরাতন ব্রিজটি প্রায় ত্রিশ বছর পূর্বে নির্মাণ করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এ ব্রিজের উপর দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য ট্রাক, পিক-আপ, সিএনজি অটোরিকশা, এ্যাম্বুলেন্স, পুলিশের পিকআপ, স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রী বহনকারী গাড়িসহ নানান ধরনের যানবাহন চলাচল করে। এজন্য আমাদের সব সময় আতংকের মধ্যে থাকতে হয়। ব্রিজটি ভেঙ্গে কখন যে কি হয়ে যায়?


এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর স্হানীয় সরকার ও প্রকৌশল বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহআলম পাটোয়ারী নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি ১২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদককে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নাই, ঐ এলাকার কেহ যদি লিখিতভাবে আমাকে জানায়, তাহলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা নেয়া হবে।