সংবাদ শিরোনামঃ
আলিফ মীম হাসপাতালের শেয়ার হোল্ডারদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি জেলা বিএমএ ও স্বাচিপের সভাপতি ডা: জাকির হোসেন উপজেলা নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ না নিতে এমপি আনোয়ার খাঁনকে চিঠি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এডভোকেট রহমত উল্যাহ বিপ্লবের কিছু কথা লক্ষ্মীপুরের কৃতিসন্তান আনোয়ারুল হক ছলেমা খাতুন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কামাল ফার্মারের  জন্মদিনে তিনি সকলের আশির্বাদ /দোয়া প্রার্থী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদি ইউপি নির্বাচনে মীর শাহআলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে এডভোকেট নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত অনিয়মে চাকরিচ্যুত হবেন কর্মকর্তারা, ফেক্ট- উপজেলা পরিষদ নির্বাচন লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ পুরস্কার নিয়ে বির্তক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন লক্ষ্মীপুর -১ আসনের ড, আনোয়ার খান এম পির বড় ভাই আখতার খান রায়পুর উপজেলার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পুনরায় অধ্যক্ষ মামুনের চেয়ারম্যান হওয়া প্রয়োজন লক্ষ্মীপুর জেলায় ৮ম: বারের মতো শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হলে মোঃ এমদাদুল হক দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক
লক্ষ্মীপুরে ৪ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: বিভিন্ন মহলে ক্ষোভ

লক্ষ্মীপুরে ৪ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: বিভিন্ন মহলে ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার-লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ডাকাতিয়া নদী দখল প্রসঙ্গে স্হানীয় দৈনিক বাংলার মুকুল পত্রিকায় সংবাদ ছাপানোর কারনে চার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ৩১ অক্টোবর শনিবার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও স্হানীয় পৌর মেয়র মো. ইসমাইল খোকন বাদী হয়ে রায়পুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। ২৯/৩১/৩৬ ধারায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে (১২ নং) মামলা করা হয়।

মামলার এজাহার ও বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, গত ২৮ অক্টোবর দৈনিক বাংলার মুকুল পত্রিকায় ‘রায়পুরে ডাকাতিয়া নদী এখন খোকন ডাকাতের কবলে’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রায়পুর পৌর মেয়র মো. ইসমাইল খোকন ৩১ অক্টোবর শুক্রবার ৪ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে লক্ষ্মীপুর থেকে প্রকাশিত দৈনিক বাংলার মুকুল সম্পাদক একেএম মিজানুর রহমান মুকুল ও একই পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক আফরোজা আক্তার রাঙা, মোহনা টিভি রায়পুর প্রতিনিধি এস এন উদ্দিন রিয়াদ, এশিয়ান টিভি রায়পুর প্রতিনিধি জহিরুল ইসলাম টিটুকে আসামী করা হয়।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, বাদী ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠিত রাজনীতিবিদ। তার (ইসমাইল খোকন) সুনাম হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য বিবাদীগন একযোগে ষড়যন্ত্র করে। এজাহারে তিনি আরো উল্লেখ করেন, বিবাদীগন সমাজবিরোধী, চাঁদাবাজ, লেখাপড়া বিহীন বখাটে ধান্ধাবাজ সাংবাদিক এবং মানুষকে ব্লাকমেইল করে বিপদে ফেলে অনৈতিক চাঁদা দাবী করাই তাদের পেশা।
এদিকে বাদীর এজাহারে লেখাপড়া বিহীন সাংবাদিক প্রসঙ্গে খোঁজ খবর নিয়ে প্রথমিক অবস্হায় জানা গেছে, বাংলার মুকুল পত্রিকার সম্পাদক ব্যাচেলার সোসাল সাইন্স (স্নাতক) ডিগ্রিধারী এবং পত্রিকাটির নির্বাহী সম্পাদক আফরোজা আক্তার রাঙ্গা স্নাতকোত্তর পাশ।
বাংলার মুকুলের সম্পাদক ও প্রকাশক একেএম মিজানুর রহমান জানান, ২৮ অক্টোবর সংখ্যায় ঐ সংবাদে ভুল বশত; ডাকাত শব্দটি প্রিন্ট হয়েছে। সে কারনে পরদিন ২৯ অক্টোবর পত্রিকায় সংশোধনী দেয়া হয়েছে। এতে আমরা দু:খ প্রকাশ ও ক্ষমা চেয়েছি। তারপরেও মামলা করাটা দুংখজনক। আশাকরি বাদী মামলাটি প্রত্যাহার করে নিবেন।

সাংবাদিকদের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানিয়েছে লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাব, সম্পাদক পরিষদ, জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন, জেলা রিপোর্টাস ক্লাব ও লক্ষ্মীপুর সাংবাদিক কল্যাণ সংস্হার সংবাদকর্মীগণ। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অবাধ ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ বিনষ্টের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সাংবাদিকদের এসব সংগঠন। আজ ১ নভেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর সম্পাদক পরিষদের নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে।

সাংবাদিক নেতারা বলেন, গত ২৮ অক্টোবর দৈনিক বাংলার মুকুল পত্রিকায় “রায়পুর ডাকাতিয়া নদী এখন খোকন ডাকাতের কবলে” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদের শিরোনামে ভূলবশত ডাকাত শব্দটি ব্যবহার হয়েছে মর্মে পরের দিন অর্থাৎ ২৯ অক্টোবর একই সংবাদের সংশোধনী দেওয়া হয়েছে। অথচ পরদিন ২৯ অক্টোবর ঐ সংবাদের শিরোনামের সংশোধনী দেয়ার পরও গনমাধ্যমকর্মিদের বিরুদ্ধে মামলা করায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে সাংবাদিক মহল।

এদিকে অনতিবিলম্বে নিঃশর্তভাবে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি হোসাইন আহম্মদ হেলাল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি জহির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক বায়েজীদ ভূঁইয়া, জেলা রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি একিউএম সাহাব উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম জয়, লক্ষ্মীপুর রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি আফজাল হোসেন সবুজ সহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, লক্ষ্মীপুর সাংবাদিক কল্যান সংস্হার সভাপতি ভাস্কর বসু রায় চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক আবদুল মজিদ।

অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি অব্যাহত রাখার হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা আমরা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। একই সঙ্গে প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে ও ব্যক্তিস্বার্থে যারা এ আইনের চরম অপব্যবহার করেছেন।

এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুরের সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও জেলা জজ আদালতের জ্যেষ্ঠ আইনজীবি মিজানুর রহমান মুন্সী’র নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিচারধীন বিষয়ে মন্তব্য করা ঠিক হবে না, মামলা করা বা না করা এটা ভুক্তভুগি ব্যক্তির বিষয়। বাদীর অভিযোগে সাংবাদিকদের লেখাপড়া বিহীন ধান্ধাবাজ, চাঁদাবাজ উল্লেখ করার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কার শিক্ষাগত যোগ্যতা কতটুকু তা সনদপত্রে যাচাই করলে পাওয়া যাবে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রায়পুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শিপন বড়ুয়া নিকট নদী দখল প্রসঙ্গে জনস্বার্থে নিউজের বিষয়ে ৪ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মামলা মাত্র হয়েছে, তদন্ত করে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হবে।