সংবাদ শিরোনামঃ
উপজেলা নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ না নিতে এমপি আনোয়ার খাঁনকে চিঠি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এডভোকেট রহমত উল্যাহ বিপ্লবের কিছু কথা লক্ষ্মীপুরের কৃতিসন্তান আনোয়ারুল হক ছলেমা খাতুন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কামাল ফার্মারের  জন্মদিনে তিনি সকলের আশির্বাদ /দোয়া প্রার্থী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদি ইউপি নির্বাচনে মীর শাহআলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে এডভোকেট নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত অনিয়মে চাকরিচ্যুত হবেন কর্মকর্তারা, ফেক্ট- উপজেলা পরিষদ নির্বাচন লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ পুরস্কার নিয়ে বির্তক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন লক্ষ্মীপুর -১ আসনের ড, আনোয়ার খান এম পির বড় ভাই আখতার খান রায়পুর উপজেলার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পুনরায় অধ্যক্ষ মামুনের চেয়ারম্যান হওয়া প্রয়োজন লক্ষ্মীপুর জেলায় ৮ম: বারের মতো শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হলে মোঃ এমদাদুল হক দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক এমপি ও মন্ত্রী হতে নয় বরং মানুষের পাশে দাঁড়াতে আ.লীগ করি, সুজিত রায় নন্দী
লক্ষ্মীপুরে ডাবল মার্ডার মামলায় জিহাদীকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশ সুপারের প্রেস  ব্রিফিং

লক্ষ্মীপুরে ডাবল মার্ডার মামলায় জিহাদীকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশ সুপারের প্রেস  ব্রিফিং

লক্ষ্মীপুর থেকে ভি বি রায় চৌধুরী –
লক্ষ্মীপুরে আলোচিত নোমান-রাকিব হত্যা মামলার প্রধান আসামি আবুল কাশেম জিহাদীকে গ্রেফতারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোঃ মাহফুজ্জামান আশরাফ।

বৃহস্পতিবার (১১ মে) রাত ৮টার দিকে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমকর্মীদের এ কথা জানিয়েছেন তিনি।

পুলিশ সুপার বলেন, লক্ষ্মীপুরে আলোচিত নোমান-রাকিব হত্যা মামলার প্রধান আসামি আবুল কাশেম জিহাদীকে গ্রেফতারে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। আশা করি আমরা সফল হব। ইতোমধ্যে এই মামলার ১৭ জন আসামিকে গ্রেফতার করছি। উদ্ধার করা হয়েছে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্র। সেই সঙ্গে স্বেচ্ছায় হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে মামলার ৩ নম্বর আসামি ফয়সাল দেওয়ান ও ১৮ নম্বর আসামি আলমগীর হোসেন ওরফে টাকলু আলমগীর।

এসপি মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে যারা জড়িত ছিল, সম্প্রতি এই মামলার ৩ ও ১৮ নম্বর আসামি আদালতে স্বীকারোক্তি জবানবন্দি দিয়েছেন। সবার হাতে শরীফ নামে এক ব্যক্তি অস্ত্রগুলো দিয়েছে এবং ৪ থেকে ৫ ভাগে অবস্থান নেওয়ার জন্য দিকনির্দেশনা দেয়। তার পরিকল্পনা অনুযায়ী নোমান-রাকিবকে গুলি করে হত্যা করা হয়। তাকেও গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।