সংবাদ শিরোনামঃ
আলিফ মীম হাসপাতালের শেয়ার হোল্ডারদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি জেলা বিএমএ ও স্বাচিপের সভাপতি ডা: জাকির হোসেন উপজেলা নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ না নিতে এমপি আনোয়ার খাঁনকে চিঠি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এডভোকেট রহমত উল্যাহ বিপ্লবের কিছু কথা লক্ষ্মীপুরের কৃতিসন্তান আনোয়ারুল হক ছলেমা খাতুন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কামাল ফার্মারের  জন্মদিনে তিনি সকলের আশির্বাদ /দোয়া প্রার্থী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদি ইউপি নির্বাচনে মীর শাহআলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে এডভোকেট নজরুল ইসলাম চেয়ারম্যান নির্বাচিত অনিয়মে চাকরিচ্যুত হবেন কর্মকর্তারা, ফেক্ট- উপজেলা পরিষদ নির্বাচন লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ পুরস্কার নিয়ে বির্তক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন লক্ষ্মীপুর -১ আসনের ড, আনোয়ার খান এম পির বড় ভাই আখতার খান রায়পুর উপজেলার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পুনরায় অধ্যক্ষ মামুনের চেয়ারম্যান হওয়া প্রয়োজন লক্ষ্মীপুর জেলায় ৮ম: বারের মতো শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হলে মোঃ এমদাদুল হক দালাল বাজার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে কাকে ভোট দিবেন? লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৪নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদপ্রার্থী কাজল খাঁনের গণজোয়ার লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক
রক্তদাতাদের দ্বারাই সমাজ পরিবর্তন সম্ভব : অর্থ সচিব

রক্তদাতাদের দ্বারাই সমাজ পরিবর্তন সম্ভব : অর্থ সচিব

স্টাফ রিপোর্টার

রক্তদান মানবিক গুণাবলিরই অন্যতম একটি গুণ। রক্তদাতাদের দ্বারা শুধু রক্তদানই নয়, তাদের দ্বারা সমাজ পরিবর্তনও সম্ভব। যিনি স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন, তিনি আসলে দেশপ্রেমে পূর্ণ, মানবপ্রেমে পূর্ণ।

গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন আয়োজিত রক্তদাতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন অর্থ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী।

রক্তদাতাদের সামাজিক শক্তি ও মানবিক গুণাবলিসম্পন্ন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, দেশের জন্যে ভলান্টিয়ার যাচাই করতে হলে আগে দেখা উচিত, তার ডোনার কার্ড আছে কি না। আর স্বেচ্ছা রক্তদাতাদের মতো এমন শক্তি দেশের জন্য গর্বের। এ শক্তিকে আমাদের কাজে লাগাতে হবে।

অনুষ্ঠানে কমপক্ষে ২৫ বার স্বেচ্ছায় রক্তদান করেছেন- এমন দেড় শতাধিক স্বেচ্ছা রক্তদাতাকে আইডি কার্ড, সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রমের অনারারি পরিচালক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. এ বি এম ইউনুস। তিনি জানান, বাংলাদেশে প্রায় ৭ লাখ ব্যাগ নিরাপদ ও সুস্থ রক্তের চাহিদার বিপরীতে মাত্র ২৬ ভাগ রক্ত সংগৃহীত হয় স্বেচ্ছায় রক্তদানের মাধ্যমে। রক্ত ঘাটতির বিপুল এ চাহিদা পূরণের লক্ষেই কোয়ান্টাম ১৯৯৬ সাল থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি ও স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। ২০০০ সালে ল্যাব প্রতিষ্ঠার পর এ পর্যন্ত ৯,৪৯,৩৪৫ ইউনিট রক্ত সরবরাহ করে কোয়ান্টাম।

অনুষ্ঠানে নিয়মিত স্বেচ্ছা রক্তদাতাদের পক্ষ থেকে অনুভূতি ব্যক্ত করেন উম্মে সালমা মৌসুমী ও নিয়মিত রক্তগ্রহীতাদের মধ্য থেকে অনুভূতি জানান থ্যালাসেমিয়া রোগী নার্গিস আক্তার।

রক্তদাতাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান কোয়ান্টাম স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক মাদাম নাহার আল বোখারী। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, একজন রক্তদাতা তার রক্ত কাকে দেয়া হচ্ছে, কে তার রক্তে বেঁচে গেল সে খবরও জানেন না। তারা শুধু নীরবে নির্ভৃতে দান করে যান। কোনো মানুষের পক্ষে আসলে এ দানের প্রতিদান দেয়া সম্ভব নয়।