সংবাদ শিরোনামঃ
লক্ষ্মীপুরের উপশহর দালাল বাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পাঁচজন,কে হবেন চেয়ারম্যান ? বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ওমান সুর শাখার সহ-সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেনের ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক এমপি ও মন্ত্রী হতে নয় বরং মানুষের পাশে দাঁড়াতে আ.লীগ করি, সুজিত রায় নন্দী বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই বাড়ছে ভুয়া সাংবাদিকদের দৌরাত্ম্য, নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী পদক্ষেপ চাই লক্ষ্মীপুরে বিনা তদবিরে পুলিশে চাকরি পেল ৪৪ নারী-পুরুষ দুস্থ মানবতার সেবায় এগিয়ে আসা “সমিতি ওমান ” কর্তৃক চট্টগ্রামে ইফতার সামগ্রী বিতরণ দলিল যার, জমি তার- নিশ্চিতে আইন পাস লক্ষ্মীপুরে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে পবিত্র কুমার  লক্ষ্মীপুর সংরক্ষিত আসনের মহিলা সাংসদ আশ্রাফুন নেসা পারুল রায়পুরে খেজুর রস চুরির প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধকে মারধরের অভিযোগ লক্ষ্মীপুরে আলোচিত রীয়া ধর্ষণের বিষয়ে আদালতে মামলা তিনশ’ বছরের ঐতিহাসিক ‘খোয়াসাগর দিঘি’র নাম পরিবর্তনের কোন সুযোগ নেই, জেলা প্রশাসক’ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক উপকমিটির তৃতীয় বার সদস্য হলেন লক্ষ্মীপুরের কৃতি সন্তান আবুল বাশার লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন সভাপতি-তাহের,সম্পাদক কাউছার
মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পাওয়া এমরানের পাশে জেলা প্রশাসক আনোয়ার হোছাইন আকন্দ

মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পাওয়া এমরানের পাশে জেলা প্রশাসক আনোয়ার হোছাইন আকন্দ

লক্ষ্মীপুর থেকে ভি বি রায় চৌধুরী – লক্ষ্মীপুরের কমলনগর নিবাসী হতদরিদ্র ভ্যান চালকের ছেলে মো: এমরান হোসেন। যিনি পরিবারের অভাবের মধ্যে থেকেও মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। কিছুটা অনিশ্চিতয়তার মধ্যে পড়েছিলেন তার মেডিকেলে ভর্তি হওয়া নিয়ে। এ অনিশ্চয়তা কাটাতে তার পাশে দাঁড়িয়েছে লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসন। বুধবার ১৫ মার্চ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মো. এমরান হোসেনকে মেডিকেলে ভর্তির জন্য ২০ হাজার টাকা সহয়তা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ

।এমরান লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার হাজির হাট ইউনিয়নের মিয়া পাড়া এলাকার ভ্যান চালক মো. ইউছুফ এর ছেলে। ইউছুফ একটি ডিস্ট্রিবিউটর কোম্পানির ভ্যান চালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।এমরান মেডিকেলে ভর্তি পরিক্ষায় উত্তির্ন হয়ে ঢাকার শহিদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। তিনি উপজেলার হাজির হাট সরকারি মিল্লাত একাডেমি ও লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ পেয়েছেন।হতদরিদ্র ভ্যান চালক মো. ইউছুফ এর ছেলে মো.এমরান হোসেন মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপরেই মো. এমরান হোসেনের জন্য আর্থিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ।মো.এমরান হোসেন বলেন, মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েছি। ভর্তি বাবদ অনেক টাকার প্রয়োজন।এতো টাকা একসাথে জোগাড় করা আমার পরিবারের জন্য অনেক কষ্টসাধ্য। মেডিকেলে ভর্তির জন্য ডিসি স্যার ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন। খুব খুশি হয়েছি। ভর্তির টাকা নিয়ে সমস্যা থাকলো না। সবার কাছে দোয়া চাই,যেন লেখাপড়া শেষ করে ভালো মানুষ হতে পারি।মো.এমরান হোসেনের বাবা মো. ইউছুফ বলেন,স্যারকে কৃতজ্ঞতা দিয়ে শেষ করতে পারবো না। মেডিকেলে ভর্তিতে ছেলের অনেক টাকার দরকার ছিল। এখন আর কোন সমস্যা নেই। ছেলেটা আমার অনেক কষ্ট করে এই পর্যন্ত আসছে। দোয়া করবেন বড় ডাক্তার হয়ে সে যেনো মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারে।লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ বলেন,বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে একটি যুগোপযোগী ও আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষানীতি করেছেন। বর্তমানে বাংলাদেশের ছেলেমেয়েরা আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে। হতদরিদ্র পরিবারের সন্তান এমরান মেডিকেলে ভর্তির সুযোগে তাকে ভর্তির জন্য টাকা দিয়েছি।এটা আমাদের সেবামূলক কাজ। এছাড়া এমরানের মতো এমন যারা রয়েছে তাদের পাশেও লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন দাঁড়াবে।